drunken elephant

অসত্য যখন ভাইরাল হয়

খবরঃ National Geographic

করোনা ভাইরাসের আক্রমণের পর থেকে কোনও ভালো খবর যখন পাওয়া যাচ্ছিলোনা, তখন কিছু খবর টুইটার/টিকটকে ভাইরাল হতে দেখা যায়

এর মধ্যে রয়েছে, ভ্যানিসের খালগুলোতে হাঁস আর ডলফিনের ফিরে আসা, হাতীর পালের কর্ণ ওয়াইন খেয়ে অজ্ঞান হয়ে থাকা

এগুলো সব ই অসত্য সংবাদ।

কাভেরি গণপতি আহুজা এর করা এক টুইটে দেখা যায় তিনি বলছেন “Here’s an unexpected side effect of the pandemic, The water flowing through the canals of Venice is clear for the first time in forever. The fish are visible, the swans returned.”

যেটা পরে দেখা যায় এটা তোলা হয়েছে মেডিটরিয়ান সী এর সারদানিয়া থেকে, যেটা কয়েক শত মেইল দুরে অবস্থিত বুরানো থেকে

( The swans in the viral posts regularly appear in the canals of Burano, a small island in the greater Venice metropolitan area, where the photos were taken. The “Venetian” dolphins were filmed at a port in Sardinia, in the Mediterranean Sea, hundreds of miles away.)

কেউ এখনো বলতে পারছেনা এই হাতীর ব্যপারটা কোথা থেকে এলো। যিনি পোস্ট করেছেন তার ভাষ্যমতে এটা ইউইনান, চায়নার এক চা বাগান থেকে তোলা, যার কোনও ভিত্তি নেই বলে জানিয়েছে চাইনিজ নিউজ

(( No one has figured out where the drunken elephant photos came from, but a Chinese news report debunked the viral posts: While elephants did recently come through a village in Yunnan Province, China, their presence isn’t out of the norm, they aren’t the elephants in the viral photos, and they didn’t get drunk and pass out in a tea field. )

এভাবেই যখন কোনও সমস্যা বা প্রাকৃতিক দুর্যোগ দেখা দেয়, তখন এমন কিছু অসত্য সংবাদ ভাইরাল হয়ে যায়

আশা করি সবাই সচেতন হবে

corona_bd

ধর্মীয়, রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান বন্ধ: প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়

করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে সারা দেশে সব ধরনের ধর্মীয়, রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়।

এর আগে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত চার জন শনাক্ত হয়েছেন। এরপর, আজ দুপুরে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক প্রেস ব্রিফিং করে জানান, করোনাভাইরাসে কোনো এলাকা বেশি আক্রান্ত হয়ে গেলে, সে এলাকা লকডাউন করা হবে।

 খবরঃ The Daily Star

self quarantine

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে আমি কি করছি

By Anik Bin Ashraf

সরকারী চাকুরীজীবি হিসেবে এখনোও নিজেকে কোয়ারেন্টিন করে রাখার সুযোগ পাইনি। আমার বন্ধু-তালিকায় সাংবাদিক, ডাক্তার সহ এমন অসংখ্য পেশার মানুষ আছেন যাদেরকে জীবিকার কারণেই প্রতিদিন বাইরে যেতে হচ্ছে। তাই বলে তো আর করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ বন্ধ থাকতে পারে না। সে কথাগুলোই আজ বলবোঃ-

১। বাইরের জুতা পড়ে বাসায় প্রবেশ বন্ধ করলাম।

২। বাইরে থেকে এসেই সরাসরি আগে শাওয়ার। যতবারই যাই না কেন। এটা একটা কঠিন সিদ্ধান্ত। এজন্যই কঠিন, কেননা বাইরে থেকে আসার সাথে সাথেই আমার পুত্র এসে আমায় জড়িয়ে ধরে। বুকে অনেক কষ্ট নিয়ে আজ থেকে ওকে মানা করলাম। বুঝিয়ে বললাম।

৩। পত্রিকা নেয়া বন্ধ করলাম। অনলাইনে পড়ে নিবো।

৪। যতটা সম্ভব ভীড় এড়িয়ে চলা। আমার মা একা থাকেন। তাকে দেখতে ইচ্ছে করলেও, সেই ইচ্ছা সংবরণ করছি। মেসেঞ্জারে ভিডিও কলে মনের সেই আশা পূরণ করছি। দাওয়াত গ্রহণ করছি না।

৫। কর্মক্ষেত্রে করমর্দন/কোলাকুলি সচেতন ভাবে এড়িয়ে চলছি। এখানে গ্যাদারিং হলেও সচেতন ভাবে একটু দুরে বসার চেষ্টা করছি।

৬। আমার মতে,দরজার হাতল আরেকটা জায়গা যেটা এই ভাইরাস সংক্রমণে প্রত্যক্ষ ভূমিকা রাখবে। তাই দরজা খুলছি পা/হাটু দিয়ে ধাক্কা দিয়ে। সুযোগ থাকলে ডিসপোযেবল / অন্য যেকোনো গ্লাভস ব্যবহার করাই ভাল। টাকা পয়সা ধরার ক্ষেত্রেও একই সতর্কতা অবলম্বন বাঞ্চনীয়। গাড়ীর স্টিয়ারিং, গাড়ীর দরজা, ল্যাপটপের কিবোর্ড সব ক্ষেত্রেই একইভাবে সতর্ক থাকা প্রয়োজন।

৭। নিজের বাচ্চাদেরকে সচেতন করুন। ওর বিকেলে খেলতে যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছি। মুরুব্বিদের সাথে ফোনে কথা বলুন। তাদেরকেও সচেতন করুন।

৮। পাশ্চাত্যের মতো আমাদের দেশে কমপ্লিট কোয়ারেন্টিনে যাওয়া মুস্কিল। ড্রাইভার/দারোয়ান / কাজের বুয়া তাদের এড়িয়ে চলা মুস্কিল। সেক্ষেত্রে তাদের সচেতন করুন। তারা বাসায় প্রবেশ করার সাথে সাথেই তাদেরকে হাত পরিষ্কারের সুযোগে করে দিন।

৯। দৌড়াতে গেলে একাই দৌড়াচ্ছি। জীমে না যাওয়াই ভাল। গেলেও গ্লাভস ব্যবহার করছি।

১০। যার যার সৃষ্টিকর্তার কাছে এই দুর্যোগ থেকে পরিত্রানের জন্য কায়োমনো ভাবে প্রার্থনা করুন। বিপদ যদি তিনি দিয়ে থাকেন তবে পরিত্রানের রাস্তাও তিনিই দেখাবেন। তবে সে জন্য আমরা যদি আমাদের নিজেদের সাহায্য না করি তাহলে মুস্কিল।

পরিশেষে এটাই বলবো, কারোও সাহায্যের আশায় বসে না থেকে নিজেই নিজেকে সাহায্য করুন। আপনার সচেতনতাই পারে প্রতিরোধের দেয়ালকে সুদৃঢ় করে তুলতে।

ফেসবুক থেকে সংগৃহীত

corona bangladesh

 করোনাঃ সঠিক গাইডলাইন মেনে চলুন

বর্তমান কোভিড-১৯ পরিস্থিতি মোকাবেলায় সরকার কি কাজ করছে, আমাদের কি করা উচিত ইত্যাদি বিষয় নিয়ে সাধারণ মানুষ তো বটেই,আমরা চিকিৎসকেরাও বিভ্রান্তি ও আতংকে ভুগছি। আমাদের মনে রাখতে হবে, বিশ্বের প্রতিটি দেশের পরিস্থিত একই ররম না। ইটালিতে যে পরিস্থিতি বাংলাদেশে তা নয়। কোন দেশ কোন পরিস্থিতিতে কি করবে সে বিষয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পরামর্শ মোতাবেক গাইডলাইন তৈরি করা হয়েছে। বাংলাদেশও একইভাবে ন্যাশনাল প্রিপেয়ার্ডনেস গাইডলাইন তৈরি করেছে COVID-19 বিষয়ক টেকনিক্যাল কমিটির সহায়তায়। এছাড়াও ট্রিটমেন্ট, হোম কেয়ার, মাস্ক ব্যবহার ইত্যাদি সম্পর্কে আলাদা আলাদা অনেকগুলো গাইডলাইন তৈরি হয়েছে টেকনিক্যাল কমিটি ও আইপিসি কমিটির মতামত অনুসারে। এসকল কমিটিতে বাংলাদেশ সোসাইটি অফ মেডিসিন এর সম্মানিত চিকিৎসকগণ সহ, ভাইরলজিস্ট, মাইক্রোবায়োলজিস্ট, জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ও সংশ্লিষ্ট অন্যান্য ব্যক্তিবর্গ সদস্য হিসেবে আছেন। বাংলাদেশ বর্তমানে স্টেজ-২ তে আছে, এই স্টেজে কি করা হচ্ছে এবং পরের স্টেজগুলোতে কি করা হবে সেটি ন্যাশনাল প্রিপেয়ার্ডনেস গাইডলাইনে উল্লেখ আছে। গাইডলাইনটি এই লিংক থেকে ডাউনলোড করতে পারেনঃ

shorturl.at/cqvY4

এছাড়া আইইডিসিআর এর ওয়েবসাইটে আলাদা ভাবে সব গাইডলাইন পাওয়া যাবে এই লিংকেঃ https://www.iedcr.gov.bd/…/com…/content/article/73-ncov-2019

আলাদা আলাদাভাবে প্রতিটি গাইডলাইনঃ

* ডেইলি প্রেস রিলিজঃ https://www.iedcr.gov.bd/…/artic…/11-others/227-pressrelease

• সাসপেক্টেড কেস এর ক্লিনিক্যাল ম্যানেজমেন্টঃ https://www.who.int/…/coronaviruse/clinical-management-of-n…

• সাসপেক্টেড কেস এবং কন্টাক্ট এর হোম কেয়ারঃ https://apps.who.int/iris/rest/bitstreams/1269964/retrieve

• কোয়ারেন্টাইন ক্রাইটেরিয়াঃ https://apps.who.int/iris/rest/bitstreams/1271229/retrieve

• হেলথ কেয়ার ওয়ার্কার রিস্ক এসেসমেন্ট টুলঃ https://apps.who.int/…/WHO-2019-nCov-HCW_risk_assessment-20…

• পিপিই এর র‍্যাশনাল ব্যবহার গাইডলাইনঃ https://apps.who.int/…/WHO-2019-nCov-IPCPPE_use-2020.1-eng.…

• রিস্ক কমিউনিকেশন প্যাকেজ (কোন সেটিং এ কেমন পিপিই ব্যবহার করা উচিত সেঁতা সহ)ঃ https://iris.wpro.who.int/…/10665…/14482/COVID-19-022020.pdf

• কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে কর্মস্থল ব্যবস্থাপনাঃ https://www.who.int/…/getting-workplace-ready-for-covid-19.…

• সোশাল স্টিগমা ব্যবস্থাপনাঃ https://www.who.int/…/default-source/coronaviruse/covid19-s…

• ইনভেস্টিগেশন প্রটোকলঃ https://www.who.int/…/technical-guidan…/early-investigations

• মাস্ক ব্যবহার নিয়মাবলীঃ https://apps.who.int/iris/rest/bitstreams/1269003/retrieve

• হেলথ কেয়ার ওয়ার্কারদের জন্য আইপিসি প্রশ্ন উত্তরঃ https://www.who.int/…/q-a-on-infection-prevention-and-contr…

• সাসপেক্টেড ইনফেকশন এর ক্ষেত্রে আইপিসি গাইডলাইনঃ https://apps.who.int/iris/rest/bitstreams/1266296/retrieve

• মেন্টাল হেলথঃ https://www.who.int/…/cor…/mental-health-considerations.pdf…

• মাস গ্যাদারিং প্রিপেয়ার্ডনেস অনলাইন কোর্সঃ https://extranet.who.int/hslp/training/enrol/index.php

• বাড়িতে পরিচর্যার নির্দেশনা (বাংলা) ঃ https://www.iedcr.gov.bd/…/Draft%20of%20Home%20care%20for%2…

• সকল আগমনী যাত্রীদের প্রতি নির্দেশনাঃ https://www.iedcr.gov.bd/…/flow%20chart%20for%20all%20arriv…

• প্রতিরোধে করনীয় (বাংলা প্রেজেন্টেশন)ঃ https://www.iedcr.gov.bd/…/2020-01-28%20presentation%20for%…

• সার্ভিলেন্স, কেস ডেফিনেশন, স্পেসিমেন কালেকশনঃ https://www.iedcr.gov.bd/…/Global-surveillance-for-2019-nco…

• মাস্ক পরার নিয়মঃ https://www.iedcr.gov.bd/ima…/files/nCoV/Mask%20use_nCoV.pdf

• আন্তর্জাতিক ভ্রমণকারীদের প্রতি নির্দেশনাঃ https://www.iedcr.gov.bd/…/files/nCoV/Travel%20advice%20fin…

• FAQ COVID19- https://www.iedcr.gov.bd/images/files/nCoV/FAQ_COVID-19.pdf

• ভ্রান্ত ধারনা ও জবাবঃ https://www.iedcr.gov.bd/…/%E0%A6%95%E0%A6%BF%E0%A6%9B%E0%A…

• আইপিসি রিকমেন্ডেশনঃ https://www.iedcr.gov.bd/…/Infection%20Prevention%20and%20C…

• জনস্বার্থে আইনের প্রয়োগঃ https://www.iedcr.gov.bd/…/Public%20announcement%20for%20CO…

এই গুরুত্বপূর্ন ডকুমেন্টগুলো সব যায়গায় ছড়িয়ে দেয়া প্রয়োজন, বাংলায়। এ কাজে সহযোগিতা করার মত কেউ আছেন? প্রচুর ডকুমেন্ট। সংশ্লিষ্টরা এইসব ডকুমেন্ট তৈরি করেছেন, হটলাইন সামলাচ্ছেন, ল্যাব এবং সার্ভিলেন্স সামলাচ্ছেন, সাংবাদিকদের সামলাচ্ছেন, এয়ারপোর্ট পরিস্থিতি সামলাচ্ছেন। প্রত্যেকে দিনরাত শুক্র শনি প্রতিদিন কাজ করছেন । এরা সবাই আমার আপনার কলিগ। সুতরাং আপনি যখন বলেন কেউ কোন কাজ করছে না তখন তাদের কেমন লাগে চিন্তা করে দেখুন এবং তাদের সেই সময় ও নেই যে সোশাল মিডিয়ায় এসে বার বার সবাইকে বোঝাবে। তাই চলুন আমরা সবাই মিলে তাদের সাহায্য করি। এই গ্রুপে অনেক ক্রিয়েটিভ মানুষ আছেন, অনেকের বড় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আছে। আপনারা এইসব ডকুমেন্ট বাংলা করে পোস্টার, এনিমেশন, ভিডিও ইত্যাদি কনটেন্ট তৈরি করে, প্রচার করে, প্রিন্ট করে, বিতরণ করে সাহায্য করতে পারেন? জাতীয় ও বৈশ্বিক দূর্যোগে শুধু সমালোচনা না করে সবাই কাজে সাহায্য করলে আমরা নিশ্চয়ই পরিস্থিতিটি নিয়ন্ত্রণে সফল হবো। করবেন কি কেউ কাজগুলো?

মারুফুর রহমান অপু
সসচিম ২০০৬-০৭
ডেপুটি প্রোগ্রাম ম্যানেজার (মেডিকেল বায়োটেকনোলজি)
স্বাস্থ্য অধিদপ্তর

89850227_2850539621679662_51682883366027264_n

আমোদে ফুর্তিতে করোনাকে আমন্ত্রণ

করোনা ভাইরাসে এখন সারাবিশ্ব আক্রান্ত। ভুটানে ১ জন আক্রান্ত রোগী পাওয়ার সাথে সাথে লকডাউন করে ফেলা হয়েছে, ইতালিতে মারা যাচ্ছে শতশত করোনা রোগী, বন্ধ করে দেয়া হয়েছে সব কিছু।

মালয়েশিয়াতে আক্রান্ত রোগী পাওয়ার সাথে সাথে সব লকডাউন করে ফেলা হয়েছে

ছবিঃ Mohammad Rezaur Rahman

এবার আসুন বাংলাদেশে কি করা হয়েছে আর হচ্ছে সেটা দেখি। গতকাল ছিল জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী। তাই মানিক মিয়াতে আয়োজন করা হয়েছিল আতসবাজির। সেটা দেখতে উৎসুক জনতা

আর পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকতে ছিল উপচে পড়া ভিড়

মালয়েশিয়াতে এক মসজিদে করোনা আক্রান্ত একজন নামাজে গিয়েছিলেন, এরপর সংক্রমিত হয় অনেকের মধ্যে, আর এর পরই লকডাউন করে দেয়া হয় সমগ্র দেশকে, আর বাংলাদেশে এভাবে জনসমাগমের মধ্যে যদি সংক্রমিত কেউ থাকে, তাহলে ইতালির চেয়ে বাজে কিছু হয়তো হতে যাচ্ছে, সেটা হয়তো সাধারণ জনগণ বুঝতে পারার আগেই হবে

সবাইকে সতর্ক থাকার আহবান থাকল, জনসমাগম থেকে দুরে থাকুন, নিজেকে এবং নিজের পরিবারকে সচেতন করুন

megh machang

Due to corona, Bangladesh Travel agencies cancelled their upcoming tours

বৃত্ত-Britto Travel & Tourism, Shopnojatra Travel Group স্বপ্নযাত্রা, ভবঘুরে, Trip Bd(ট্রিপ বিডি)..Adventure & Tourism, Country Tourism Bangladesh and other renowned travel agencies cancelled their upcoming travel to several destinations, which will effect the vacation at 26th march due to spread of corona virus ( COVID – 19)

The pandemic is spreading world wide and countries are trying to stop it from all of their possible ways. Bangladesh also started to take some steps already, which includes school, college and all other educational institutions will be off till 31st march 2020

The travel agencies makes a big roll on taking the level of Bangladesh tourism sector, so this is one of the toughest but very noble step for them to prevent all travelling and spreading this pandemic

TOB ( Travelers of Bangladesh (ToB) ) which is one of the biggest and oldest travel community based in facebook, also taken steps to stop people from gathering and travelling to any destinations.

If we take our self steps, like no travelling, no shaking hands, cleaning hands frequently and no gathering for next couple of days, these may help you to keep away from this pandemic

Stay safe and keep your family safe

Information: ভ্রমনগুরু

bashonti nibas

৭১ টাকায় নারীদের জন্য আবাসিক হোটেল – বাসন্তী নিবাস

বাসন্তী নিবাস

৭১ টাকায় নারীদের জন্য আবাসিক হোটেল

ঢাকা শহরে কিংবা অন্য যে কোনও শহর এলাকায় একজন নারী শিক্ষার্থী পরীক্ষা দিতে কিংবা চাকরির সন্ধানে বা কাজে এলে তাকে আবাসন সমস্যায় পড়তে হয়। শহরে পরিচিত বা আত্মীয়-স্বজন থাকলে খুব একটা সমস্যা হয় না বটে তবে সবার এমন সুবিধা থাকে না। যার পরিচিত কেউ নেই বা যিনি স্বেচ্ছায় আত্মীয়-স্বজনদের বাসায় উঠতে চান না তেমন নারীদের অনেক শঙ্কা মাথায় নিয়ে উঠতে হয় আবাসিক হোটেলে। আর বসবাসের সময়টা একটু বেশি হলে নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে অনেকেই আবাসিক হোটেলে না গিয়ে হোস্টেল বেছে নেন। সেখানেও গুনতে হয় অতিরিক্ত অর্থ। কারণ হোস্টেলের ভাড়া মাসিক চুক্তিতে দিতে হয়। নারীদের আবাসনের এমন সংকট দূর করতে এবং নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে ‘বাসন্তী নিবাস’ তৈরি করছে বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন।

চাকরিপ্রার্থী নারী ২৯৯ ও অন্য পেশার নারীরা থাকতে পারবেন ৮৮০ টাকা করে। ৮ মার্চ নারী দিবসে এই বাসন্তী নিবাস উদ্বোধন হবে বলে জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির প্রতিষ্ঠাতা কিশোর কুমার দাশ। বুধবার সরেজমিনে দেখা যায়, তিনতলার পুরো ফ্লোরেই করা হচ্ছে নারীদের জন্য এই নিবাস। একটা রুমে ১৮টি বাংক বেড, প্রতি সারিতে চারটি করে বাংক বেড বসানো হয়েছে, যেখানে ওপরতালায় একজন ও নিচতলায় একসঙ্গে থাকতে পারবেন ৩৬ জন নারী।

জানতে চাইলে বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছাসেবক দেশ রূপান্তরকে বলেন,  আমাদের এই হোটেলে শিক্ষার্থী-চাকরিপ্রার্থী কিংবা সাধারণ নারীরা সীমিত সময়ের জন্য থাকার সুযোগ পাবেন এখানে। অভিভাবকরা যাতে তার সন্তানকে একা পাঠিয়ে নিশ্চিন্তে থাকেন, সেটি বিবেচনা করে তৈরি করা হচ্ছে বাসন্তী নিবাস। তিনি আরও বলেন, শিক্ষার্থীদের জন্য প্রতি রাত যাপনের খরচ ধরা হয়েছে ৭১ টাকা আর চাকরিপ্রার্থীদের জন্য ২৯৯ টাকা। এর বাইরে সাধারণ নারীরা থাকতে পারবেন। তবে তাদের খরচ করতে হবে ৮৮০ টাকা। এই ভাড়ার সঙ্গে অন্তর্ভুক্ত থাকবে শুধু নাশতা। নাশতা হিসেবে বিস্কুট, একটি কলা এবং এক কাপ কফি পাওয়া যাবে। বাদ বাকি খাবার বিদ্যানন্দ থেকে কেনা যাবে। বাসন্তী নিবাসে থাকতে হলে একজন শিক্ষার্থীকে কিংবা একজন চাকরিপ্রার্থী নারীকে তার প্রমাণস্বরূপ কাগজপত্র দেখাতে হবে।

sajek

সাজেকে পাহাড় থেকে পড়ে পর্যটকের মৃত্যু

খবরঃ jagonews24

রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলার সাজেক পর্যটন কেন্দ্র ভ্রমণে গিয়ে পাহাড় থেকে পড়ে মো. রফিকুল ইসলাম (৪০) নামে এক পর্যটক নিহত হয়েছেন। শুক্রবার (১৩ মার্চ) বিকেলে এ ঘটনা ঘটে। নিহত রফিকুল ইসলাম কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়া গ্রামের মৃত গণি মিঞার ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার সকাল ৯টায় কিশোরগঞ্জ জেলা ব্যবসায়ী সমিতির ৮০ জন সদস্য সাজেক ভ্রমণে আসেন। সারাদিন ঘোরাঘুরি শেষে বিকেলে সবাই সাজেকের কংলাক পাহাড়ে ওঠার সময় রফিকুল হঠাৎ মাথা ঘুরে নিচে পড়ে যান। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রশাসনের সহযোগিতায় রাত ৮টায় দিঘিনালা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. আনিসুর রহমান তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সাজেক থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইসরাফিল মজুমদার জানান, তার সঙ্গে আসা বাকি পর্যটকরা নিরাপদে রয়েছেন। আইনি প্রক্রিয়া শেষে নিহতের মরদেহ তার নিজ গ্রামের বাড়িতে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হবে।

shatchori

সাতছড়িতে সাবধান

by Masuk M Fidato

ছবিয়াল ভাই-বন্ধু যারাই ইদানিং সাতছড়ি (shatchori) আসার প্লান করতেছেন তারা সবাই যথা সম্ভব সাবধানতা অবলম্বন করুন প্লিজ। সাতছড়ির বর্তমান নিরাপত্তা পরিস্থিতি খুবই খারাপ।

এর আগে সাতছড়ি (shatchori) যাওয়ার রাস্তায় প্রায়ই ডাকাতির ঘটনা ঘটলেও গত পরশু রাতে, বন বিভাগের সংরক্ষিত এলাকা ভিতরে অবস্থিত মোল্লা চাচার বাড়িতে ডাকাতি হয়, তাছাড়া গত রাতে আবারো হঠাৎ আতংক ছড়িয়ে পরে, রাতে স্থানীয়দের পাহারা ও পুলিশ মোতায়েন করতে হয়েছে,স্থানীয় সবাই এখন খুবই আতংকে রাত কাটান।

২ জন ভারতীয় মেহমান সহ ডরমেটরিতে আমরা ১১ জন ছিলাম, বলা যায় খুব বাজে একটা রাত কেটেছে 🙁 🙁
এতো এতো পাহারার মধ্যেও যেখানে স্থানীয়রাই নিরাপদ নয়, সেখানে সবারই নিজেদের নিরাপত্তার বেপারে ভাবা উচিত, সবাই সাবধানে থাকুন, নিরাপদ থাকুন।